তাহসান-মিথিলা, মিলির পর নোভা-রায়হানের বিচ্ছেদ

0
14

আরবিএন রিপোর্ট

অভিনয় শিল্পী তাহসান-মিথিলা ও সংগীত শিল্পী মিলির পর এবার ভাঙল অভিনেত্রী, মডেল, উপস্থাপিকা নোভা এবং পরিচালক, চিত্রগ্রাহক ও নাট্যকার রায়হান খানের সংসার। উভয়পক্ষ রোববার গণমাধ্যমকে বিচ্ছেদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, আগস্ট মাসের ২৬ তারিখে তাদের উভয়ই ঢাকা জজকোর্ট কাজি অফিসে গিয়ে তালাকনামায় স্বাক্ষর করে আসেন। তবে বিষয়টি এখনই প্রকাশ করলেন তারা। প্রায় দেড় মাস আগে বিচ্ছেদ হলেও এখন জানানোর কারণ হিসেবে নোভা বলেন, বিষয়টি কিন্তু ফলাও করে বলার বিষয় না। আমাদের অনেক পরিচিতজনরা বিষয়টি জানেন। এখন বললাম আমাদের বিষয়টি নিয়ে যেন কোনো নোংরামি না হয়।

বিচ্ছেদের কারণ সম্পর্কে নোভা বলেন- সমস্যা ছিল বলেই তো বিচ্ছেদ হয়েছে। তবে এগুলো বলতে চাই না। এ ছাড়াও আমাদের ছেলে সান্নিধ্য এখন বড় হচ্ছে। আমি চাইনি এই সমস্যাগুলো সান্নিধ্যকে স্পর্শ করুক। বাবার প্রতি ওর শ্রদ্ধা যেন এতটুকু নষ্ট না হয়। তাই সময় থাকতেই আমরা আলোচনা করে আলাদা হয়েছি।

তবে রায়হান খান গণমাধ্যমকে বলেন, আমাদের মাঝে বিভিন্ন বিষয়ে ভুল বোঝাবুঝির তৈরি হয়। এটা পুরোটাই ছিল পারিবারিক। এর সঙ্গে যুক্ত ছিল অর্থনৈতিক ব্যাপারও। এসব নিয়ে আমাদের মধ্যে দূরত্ব বাড়তে থাকে। আমরা এই দূরত্বকে আর বাড়তে দিতে চাইনি।

মূলত উপস্থাপনা ও অভিনয় এই দুই মিলেই নোভাকে সবাই চিনেন। তিনি একজন উপস্থাপিকা ও অভিনেত্রী। অন্যদিকে, নির্মাতা রায়হান খান, নিয়মিত নাটক নির্মাণ করেছেন। সেই জায়গা থেকেই ২০০৯ এর শেষের দিকে নির্মাতা রায়হান খান ও নোভার মধ্যে একটা প্রেমের সম্পর্কের শুরু।

দেড় বছর প্রেম করার পর গত ২০১১ সালের ১১ নভেম্বর তারা বিয়ে করেন। এরপর ২০১৩ সালের ২৮ জুলাই তাদের ঘরে একটি ছেলে সন্তান আসে। তার নাম রাখা হয় রাফাজ সান্নিধ্য রায়হান। কিন্তু নিয়মিত ঝগড়া ও মতের অমিলে শেষমেষ প্রায় পাঁচ বছর সংসারের ইতি টানলেন তারা।

উল্লেখ্য, জনপ্রিয় তারকা জুটি তাহসান মিথিলার ডিভোর্স হয়ে গেছে গত মে মাসে। এর বিষয়টি প্রকাশ পায় জুলাই মাসে। তাহসান মিথিলার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে ২০০৪ সালে। তখন দুজনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। প্রণয় থেকে পরিণয়ে আবদ্ধ হন ২০০৬ সালে। তাহসানের সে সময় বয়স ছিল ২৬ এবং মিথিলার ২৩। মিথিলা বলেন, আমাদের ক্যারিয়ারও একসঙ্গে গড়ে উঠেছে। ক্যারিয়ারের বিষয়ে আমাদের মধ্যে ঝামেলা ছিল না। কিন্তু একটা সময় এসে মনে হচ্ছিল, ১১ বছর আগের একজন মানুষ আর পরের একজন এক থাকে না। অনেক পরিবর্তন দেখা যায়। তাই বিচ্ছেদের মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হতে হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় আদর্শ কাপল হিসেবে সবার ওপরে ছিলেন তাহসান মিথিলা জুটি। তাদের এই জুটি নতুন প্রজন্মের নিকট আদর্শ প্রেমের উদাহরণ ছিল। উঠতি তরুণ-তরুণীদের নিকট ঈর্ষার কারণ ছিলেন তারা। তাহসান-মিথিলার ঘরে রয়েছে একমাত্র কন্যাসন্তান আইরা তাহরিম খান। মেয়েটি এখন মিথিলার কাছেই আছে।

অন্যদিকে নির্যাতনের মামলা করে স্বামীকে জেলে ঢোকানোর পর গত ৭ অক্টোবর বিবাহ বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন সংগীতশিল্পী মিলা। শনিবার ভেরিভায়েড ফেইসবুক পেইজে দেওয়া স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, “আমার বিচ্ছেদ ঘটতে যাচ্ছে।”

এর আগে মারধর ও যৌতুকের অভিযোগ তুলে স্বামী পারভেজ সানজারির বিরুদ্ধে মামলা করেন মিলা। মামলার পরিপ্রেক্ষিতে পারভেজকে গ্রেফতার করা হয়।

বিচ্ছেদের কারণ সম্বন্ধে মিলা তার স্ট্যাটাসে লিখেন, “১০ বছর প্রেম করে বিয়ের ১৩ দিনের মাথায় জানতে পারি, ওর সঙ্গে অন্য নারীর সম্পর্ক রয়েছে। সে আমাকে ঠকিয়েছে। এতদিন সম্পর্কের পরও আমার সঙ্গে সে এই ধরনের আচরণ করেছে। তার সঙ্গে আমি আর থাকতে চাই না।”

কিছুদিন আগেও মিলার বিচ্ছেদের গুজব ছড়িয়েছিল ইন্টারনেটে। কিন্তু সেই গুজবকে উড়িয়ে দিয়েছিলেন তিনি। তবে স্বামীর নামে মামলা করার পর বিষয়টি খোলাসা হয়।

মিলার দায়ের করা মামলায় বলা হয়, বিয়ের পর পর্যায়ক্রমে কয়েকবার মারধরের ঘটনা ঘটেছে। সর্বশেষ গত ৩ অক্টোবর তাকে মারধর করা হয়। এর আগে তার স্বামী পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক নিয়েছেন। আরও দশ লাখ টাকা দাবি করেছেন। টাকা না পেয়ে স্বামী তাকে মারধর করেছেন।

একটি বেসরকারি এয়ারলাইন্সের পাইলট পারভেজ সানজারির সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে মিলার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। গত ১২ মে রাতে মিলার বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠান হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here