২-০ গোলে হারিয়ে শুভ সূচনা বাংলাদেশের

0
30

আরবিএন রিপোর্ট

প্রায় দুই বছর আগে থিম্পুতে ভুটানের কাছে হেরে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে নির্বাসিত হয়েছিল বাংলাদেশ। এশিয়ান কাপের প্রাক-বাছাইয়ে ৩-১ গোলের ওই হার বাংলাদেশের ফুটবলকে দিয়েছিল বড় এক ঝাঁকুনি। ২৩ মাস পর ঘরের মাঠে সেই হারের মধুর প্রতিশোধ নিলো বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা ২-০ গোলে হারিয়েছে ভুটানকে। গোল করেছেন তপু বর্মন ও মাহবুবুর রহমান সুফিল।

এক সময়ে বাংলাদেশের সঙ্গে খেললেই যারা হালি-হালি গোল খেয়ে মাঠ ছাড়তো সেই ভুটান হয়ে উঠেছিল বাংলাদেশের কঠিন প্রতিপক্ষ। যদিও দক্ষিণ এশিয়ার এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশকে কখনো হারাতে পারেনি পাহাড়ী দেশটি। সে ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ সহজ জয়েই শুরু করলো সাফের শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশন।

এ ম্যাচ ঘিরে দেশের ফুটবলামোদীদের অন্যরকম আগ্রহ ছিল। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের ভাঙ্গাচোরা চেয়ারে বসেই দর্শকরা সমর্থন ও অনুপ্রেরণা দিয়েছে ফুটবলারদের। তারা হতাশ হননি, ঘরে ফিরেছে জয়ের আনন্দ নিয়েই। যদিও ম্যাচের শেষ দিকে বৃষ্টি আসায় কিছু দর্শক গ্যালারি ছেড়েছে। তবে শেষ পর্যন্ত যারা জামাল ভুইয়াদের উৎসাহ দিয়েছেন গাটের পয়সা খরচ করে তাদের টিকিটের টাকা বিফলে যেতে দেননি সুফিলরা।

শুরু থেকেই প্রধান্য ছিল স্বাগতিকদের। দ্বিতীয় মিনিটে পাওয়া ম্যাচের প্রথম কর্নারেই গোলের উৎস তৈরি হয়। ওয়ালি ফয়সালের কর্নার গোলমুখে পড়লে আতিকুর রহমান ফাহাদকে ফাউল করেন ভুটানের এক খেলোয়াড়। থাইল্যান্ডের রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজালে গোল করে গ্যালারিতে আনন্দের বন্যা বইয়ে দেন তপু বর্মন।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে ভুটান চেষ্টা করেছিল ম্যাচে কর্তৃত্ব নেয়ার। কিন্তু মাঝমাঠে সুসংগঠিত বাংলাদেশ সেটা হতে দেয়নি। বরং আস্তে আস্তে ম্যাচের নিয়ন্ত্রন নিয়ে নেন জামাল ভুইয়ারা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় বাংলাদেশ। ডান দিক থেকে বিপুল আহমেদের ক্রস ধরে একটু সামনে এগিয়ে দুর্দান্ত ভলিতে ভুটানের জাল কাঁপিয়ে দেন সুফিল। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের জয় দিয়েই দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্ব ফিরিয়ে আনার মিশন শুরু করে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ একাদশ : শহিদুল আলম সোহেল, তপু বর্মন, বিশ্বনাথ ঘোষ, টুটুল হোসেন বাদশা, ওয়ালি ফয়সাল, মাসুক মিয়া জনি (ইমন বাবু), বিপলু আহমেদ, আতিকুল ইসলাম ফাহাদ, জামাল ভুইয়া, মাহবুবুর রহমান সুফিল ও সাদউদ্দিন (ফয়সাল মাহমুদ)(মামুনুল ইসলাম)।

ভুটান একাদশ : শেরিন স্যামডাপ, চুফেল জিগমে (চকি ওয়াংচুক), গ্যালে জ্যাংপো, চেনচো, কারমা শেডরুপ, টেনজিন দর্জি, পুনসু জিগমে, কেনচো টবগে, নিমা ওয়াংডি, শেরিং দর্জি ও শেরিন ড্যানডুপ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here