‘নালিশ নয়, জাতিসংঘে বাস্তবতা তুলে ধরবেন ফখরুল’

0
15

আরবিএন রিপোর্ট

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নালিশ করতে নয়, জাতিসংঘে বাংলাদেশের বর্তমান বাস্তবতা তুলে ধরতে গেছেন বলে জানিয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ইয়ুথ ক্লাবের আয়োজনে এক আলোচনা সভায় তিনি একথা জানান।

মওদুদ বলেন, ‘আমাদের মহাসচিব মির্জা ফখরুল জাতিসংঘে গেছেন। সেখানে তিনি নিজে থেকে যাননি, তাকে নিমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। দাওয়াতে গেছেন। কিন্তু, সরকারের এক নেতা বললেন— জাতিসংঘে তিনি নাকি সরকারের বিরুদ্ধে নালিশ করতে গেছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের মহাসচিব নালিশ করতে যাননি। বাংলাদেশের বর্তমান বাস্তব অবস্থা তুলে ধরতে তিনি নিউইয়র্ক গেছেন।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘সরকার জাতীয় ঐক্য হোক, এটা চায় না। তবে ইতোমধ্যে বাংলাদেশের সব গণতন্ত্রকামী রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে জাতীয় ঐক্য হয়ে গেছে। এটাকে আরো সংঘবদ্ধ করতে হবে। আরো এগিয়ে নিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন সবাই চাইছে। সরকার যদি এই দাবি না মানে, তবে এমন কর্মসূচি দেয়া হবে যাতে সরকার আলোচনায় বসতে বাধ্য হবে।’

মওদুদ বলেন, ‘বর্তমান সরকার একটি যেনতেন নির্বাচন করে আবার ক্ষমতায় যেতে চাইছে। কিন্তু, দেশের মানুষ এই সরকারের ওপর ক্ষুব্ধ, বিরক্ত। জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করা হচ্ছে। সরকারের কোনো স্বপ্নই বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না।’

তিনি বলেন, ‘সরকার বলছে নির্বাচনকালীন সময়ে তারা রুটিন কাজ করবে। নির্বাচন কমিশন সব কাজ করবে। এগুলো মূলত জনগণকে বিভ্রান্ত করার জন্য বলা হচ্ছে। প্রকৃত অবস্থা হলো, সরকারের অধীনেই সব আইনশৃঙ্খলা বাহিনী থাকবে, প্রশাসনও থাকবে।’

খালেদা জিয়ার আদালত প্রসঙ্গে মওদুদ আহমদ বলেন, ‘দেশনেত্রীর মামলার আদালত এখন জেলখানার ভেতরে। সুতরাং আদালতও কারাবন্দি। সংবিধানে স্পষ্ট লেখা, বিচার হতে হবে প্রকাশ্যে, পাবলিক ট্রায়ালে। কিন্তু, এখন জেলখানার ভেতর আদালত নেয়া হয়েছে ক্যামেরা ট্রায়ালের জন্য।’

তিনি বলেন, ‘সরকারের এক মন্ত্রী বলেছেন— বিএনপি নেতারা আইন জানেন না। এটা নিয়ে বললে তো অনেক কিছু বলা যায়। আমি ব্যক্তিগতভাবে কাউকে আক্রমণ করি না। তবে এতটুকু বলতে চাই— তিনি যেটা বলেছেন, সঠিক বলেননি।’

বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরামের উপদেষ্টা সাইদ আহমেদ আসলামের সভাপতিত্বে ও সংগঠনের সভাপতি মুহম্মদ সাইদুর রহমানের সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম-মহাসচিব খারুল কবির খোকন, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) প্রেসিডিয়াম মেম্বার আহসান হাবীব লিংকন প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here