বাঙালি হত্যার ঘটনায় উত্তপ্ত আসাম: সীমান্তে অভিযান, বিক্ষোভ পশ্চিমবঙ্গেও

0
7
আরবিএন রিপোর্ট

ভারতের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সুত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) রাত ৮টা নাগাদ বিসনিমুখ গ্রামে প্রবেশ করে অজ্ঞাতপরিচয় বন্দুকধারীরা। এরপর পাঁচ বাংলাভাষী দিনমুজুরকে ঘর থেকে ডেকে বের করা হয় এবং তাদের ব্রহ্মপুত্রের তীরে নিয়ে গিয়ে গুলি করা হয়। হত্যাকারীরা সবাই সেনাবাহিনীর মতো পোশাক পরে ছিল বলে দাবি করেছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। নিহতদের মধ্যে শ্যামল বিশ্বাস (৬০), অনন্ত বিশ্বাস (১৮) এবং অবিনাশ বিশ্বাস একই পরিবারের সদস্য। এছাড়া,আরও দুই নিহত হলেন- সুবল দাস (৬০) এবং ধনঞ্জয় নমশূদ্র (২৩)। এরা সকলেই দিন মজুরের কাজ করতেন। এ হত্যাকাণ্ডে প্রাথমিকভাবে বিদ্রোহী সংগঠন ইউনাইটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব আসাম (ইন্ডিপেনডেন্ট) তথা উলফা (আই)-কে সন্দেহ করছে পুলিশ। অবশ্য, বিবৃতি দিয়ে এ হত্যাকাণ্ডের দায় অস্বীকার করেছে উলফা (আই)।

এমনিতেই নাগরিক তালিকা ইস্যুতে আসামে আগে থেকেই উত্তেজনা বিরাজ করছে। এরমধ্যেই বৃহস্পতিবার আসামের তিনসুকিয়া জেলার ধোলা এলাকায় পাঁচ বাঙালি হত্যার শিকার হওয়ার পর দেশজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে।

আসামের বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে শুরু হয়েছে ১২ ঘণ্টার বন্‌ধ। রেল অবরোধ, সড়ক অবরোধে বিপর্যস্ত গোটা আসাম। সারাভারত নমঃশূদ্র সমাজের পক্ষ থেকে সীমান্ত এলাকায় পিকেটিং-এর ডাক দেওয়া হয়েছে। এখনও পর্যন্ত সন্দেহভাজন দু’জন উলফা নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আসামের ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতেই টুইট করেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঘটনার তীব্র নিন্দা করে ডাক দিয়েছিলেন বিক্ষোভের। শুক্রবার রাজ্যের সর্বত্র বিক্ষোভে নামছে তৃণমূল কংগ্রেস। দুপুরে যাদবপুর ৮-বি বাসস্ট্যান্ড থেকে হাজরা পর্যন্ত মিছিল হওয়ার কথা। মিছিলের নেতৃত্বে থাকবেন যুব তৃণমূল সভাপতি তথা ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। উত্তরবঙ্গ এবং দক্ষিণবঙ্গের সব জেলায় প্রতিবাদ কর্মসূচিতে নামবে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন দল।

আসামে নাগরিক তালিকাকে কেন্দ্র করে সাম্প্রতিক যে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে তার জেরেই এই হামলা কিনা সেই প্রশ্ন তুলেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। মমতার টুইটার পোস্টে লেখা হয়েছে, ‘‌অসম থেকে ভয়ঙ্কর খবর এসেছে। এই নারকীয় হত্যার তীব্র প্রতিবাদ করছি। শ্যামলাল বিশ্বাস, অনন্ত বিশ্বাস, অবিনাশ বিশ্বাস, সুবোধ দাসকে খুন করা হয়েছে। এটাই কী জাতীয় নাগরিকপঞ্জি করার সাম্প্রতিক উন্নয়ন?‌’‌

বৃহস্পতিবার রাতেই তিনসুকিয়ার খেরবাড়ি এলাকায় পরিদর্শনে গিয়েছিলেন রাজ্যপুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তারা। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বৃহস্পতিবার রাতেই টুইট করে এই ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে কড়া পদক্ষেপের কথা বলেছিলেন। শুক্রবার সকাল থেকেই আসাম-অরুণাচল এবং আসাম-মিয়ানমার সীমান্তে শুরু হয়েছে সেনা অভিযান। চলছে তল্লাশি। সমস্ত পয়েন্টে তল্লাশি করছে আসাম রাইফেলসের বিশেষ বাহিনী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here